জেলা শিক্ষা অফিসারের বক্তব্য

আধুনিক ও যুগোপযোগী শিক্ষা ছাড়া আত্বনির্ভরশীল,দক্ষ ও মর্যাদা সম্পন্ন জাতি গঠন সম্ভব নয়। । তথ্য-প্রযুক্তি আজকের শিক্ষা ব্যবস্থার সাথে অত্যন্ত ঘনিষ্ট ভাবে জড়িত। পৃথিবীর সকল দেশ জুড়ে প্রযুক্তির ব্যবহার বিস্ময়কর ভাবে বেড়ে চলছে। দক্ষ ও যোগ্য মানব সম্পদ তৈরীর লক্ষ্যে সরকার ২০১০ সালে প্রণীত জাতীয় শিক্ষানীতিতে ৬ষ্ঠ থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত তথ্য ও যোগাযোগ প্রযু্িক্ত বিষয়টিকে বাধ্যতামূলক করেছেন। এ প্রত্যয় ও প্রনোদনা থেকেই জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ প্রণীত হয়। এ শিক্ষানীতিতে বিজ্ঞান,তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি,কারিগরী শিক্ষা ,ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষাকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে সকল সরকারি-বেসরকারি দপ্তর সমূহকে ডিজিটাল পদ্ধতির আওতায় আনা হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় সরকারের সকল পর্যায়ে ICT এর বিকাশ,উন্নয়ন ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কাজকে এগেয়ে নাওয়ার লক্ষে এবং তথ্য-প্রযুক্তির সুবিধা ব্যবহার করে শিক্ষা অফিস কতৃক এর আওতাধীন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ স্থাপনের লক্ষে্ আমরা  জেলা শিক্ষা অফিসের ডিজিটাল র্ভাসন শুরু করলাম । আমাদেগর দাপ্তরীক কাজ গুলোকে আরো গতিশীল করতে এবং যথাসময়ে আমাদের বার্তা গুলো আমাদের আওতাধীন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলোকে পৌঁছে দিতে সক্ষম হব ইনশাআল্লাহ।